মনে কামক্রোধাদির ভাব ….. থাকা। – ব্যাখ্যা

সত্যানুসরণ -এ থাকা শ্রীশ্রীঠাকুরের বাণীটি হলো:

মনে কামক্রোধাদির ভাব না এলে কী ক’রে তারা প্রকাশ পাবে? উপায়—উচ্চতর উদার ভাবে নিমজ্জিত থাকা।

পরমপূজ্যপাদ শ্রীশ্রীবড়দা কর্তৃক ব্যাখ্যা :

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—হরিপদ বল্‌—উচ্চতর উদারভাব কী?

হরিপদদা—আমরা বলে থাকি লোকটা উদার।

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—উদার মানে যার মনের বিস্তার আছে। সবাইকে নিয়ে চলতে জানে। প্রত্যেক মেয়েকে মা মনে করা—কাম ভাব আসবে না, এটা উচ্চতর ভাব। সবাইকে হৃদয়ে যে স্থান দেয় সে উদার প্রকৃতির । কাউকে ছোট দেখে না। যার মন উদার এবং যে উচ্চভাবে থাকে সে সহজে কামক্রোধাদির কাবেজে পড়ে না।

[ ইষ্ট-প্রসঙ্গে/তাং-২৩/১১/৭৫ ইং ]


শ্রীশ্রীবড়দা—কামভাব পুরুষের ভিতরে থাকতে পারে, নারীর ভিতরেও থাকতে পারে । আসল কথা হল কামভাবকে প্রশ্রয় না দেওয়া, কামভাব নিয়ে নারীর দিকে না তাকানো । যে ভাবটা খারাপের দিকে নিয়ে যায় তা’ থেকে সাবধান। ইষ্টমূর্ত্তি চিন্তা সহ নাম জপে মন স্থির থাকে। মনকে স্থির করাই তো সাধনা। মন তো সবসময় ঘোড়ার মত দৌড়াচ্ছে, স্থির থাকে না। রামকৃষ্ণদেব বলেছেন—বালতির জল যখন নাড়বে সূর্যের প্রতিফলন তার ভিতর পড়বে না। ক্রমান্বয়ে ইষ্টচিন্তা ও তৎকর্ম্ম করতে করতে মনে একাগ্রতা আসে। প্রকৃত সাধকদের মন স্থির বলে তাঁদের দর্শনও বেশি, বোধও বেশি। সব রিপু তাদের করায়ত্ত।

| [ঁযামিনীকান্ত রায়চৌধুরীর দিনলিপি/তাং-২০/৯/৭২ ইং]

[প্রসঙ্গঃ সত্যানুসরণ পৃষ্ঠা ১৭]