তোমার ভিতরে ….পারে না।-ব্যাখ্যা

সত্যানুসরণ-এ থাকা শ্রীশ্রীঠাকুরের বাণীটি হলো:

  তোমার ভিতরে যদি সত্য না থাকে, তবে হাজার বল, হাজার ভান কর, হাজার কায়দাই দেখাও, তোমার চরিত্রে, তোমার মনে, তোমার বাক্যে তার জ্যোতি কিছুতেই ফুটবে না ; সূৰ্য্য যদি না থাকে, তবে বহু আলোও অন্ধকারকে একদম তাড়িয়ে দিতে পারে না।

পরমপূজ্যপাদ শ্রীশ্রীবড়দা কর্তৃক ব্যাখ্যা :

নিত্যগোপালদা—আমরা যদি কোন ব্যক্তির মধ্যে বাহ্যিক কোনপ্রকার অভিব্যক্তি দেখতে না পাই তবে বুঝব কি ক’রে? আমরা তো একটা গণ্ডীর মধ্যে সীমাবদ্ধ!

শ্রীশ্রীবড়দা—কোন কোন লোক দেখেছি সৎসঙ্গী না হয়েও সত্যানুসরণ প’ড়ে একেবারে মুগ্ধ হ’য়ে যায়।

অরূপ প্রধান—বাক্য এবং ব্যবহারকে কি সত্য বলা যায়?

জনৈক দাদা—সত্য মানে reality।

শ্রীশ্রীবড়দা—তাই। সদা সত্য কথা বলবে। যেটা real। আমি যা’, তা’ আমার আচার-ব্যবহারে ফুটে বেরোয়। সেটাই সত্য। যদি সাধু হই, সেক্ষেত্রেও তাই। সবাইকে ভাল ভাল কথা উপদেশ দিচ্ছি আমার আচার-ব্যবহারে সেটা যদি ফুটে বেরোয়, তবে সেটা সত্য। ইষ্ট হচ্ছেন জীবন্ত বিগ্রহ। তাঁকে যদি ভালবাসি, তাহলে তা’ আমার চরিত্রে-চলনে ফুটে উঠবেই। তখনই মাত্র সত্য কি তা বুঝতে পারবো। এখানে সত্য মানে সদগুরু। ব্রহ্ম বলতে তিনিই। তাঁকে ঠিক ভাবে গ্রহণ করলে তাঁর অনুশাসন-বাদ আমার আচার-আচরণে ফুটে উঠবেই। এ না হলে আর যাই করি, তাতে কিছু হবে না। তিনিই ব্রহ্ম। তিনি কল্যাণময়। এখানে সত্যানুসরণের কথা হচ্ছে মানে তাঁকে অনুসরণের কথাই বলা হচ্ছে।

[‘যামিনীকান্ত রায়চৌধুরীর দিনলিপি/তাং-১/১/৭৩ ইং]

[প্রসঙ্গঃ সত্যানুসরণ পৃষ্ঠা ২৫৮]