যদি রক্ষা পেতে ….. থাক। – ব্যাখ্যা

সত্যানুসরণ-এ থাকা শ্রীশ্রীঠাকুরের বাণীটি হলো:

“যদি রক্ষা পেতে চাও, ভয় এবং দুর্ব্বলতা ব’লে কিছু রেখো না ; সৎ-চিন্তা এবং সৎ-কর্ম্মে ডুবে থাক।”

পরমপূজ্যপাদ শ্রীশ্রীবড়দা কর্তৃক ব্যাখ্যা :

গোপাল—আমি যদি সৎ-চিন্তা ও সৎ-কাজ করি, তবে রক্ষা পাব।

শ্রীশ্রীবড়দা—আমি কি করে বুঝব, সৎ-চিন্তা কি?

গোপাল—চুরি করা একটা অসৎ কাজ। মানুষ বাঁচতে ও বাড়তে চায়। ঠাকুর বলেছেন তুমি যদি বাঁচতে চাও তবে ভয় ত্যাগ করো।

শ্রীশ্রীবড়দা—কেন?

গোপাল—চুরি করলে ধরে নিয়ে যাবে।

শ্রীশ্রীবড়দা—আসামে এক বাড়ীতে বড় গৰ্ত্ত করে চোর সিঁদ কেটেছে।—সামনে বড় একটা কচ্ছপ ছিল—কচ্ছপ নাকে কামড় দিয়েছে। আর ছাড়ে? ‘রক্ষ্’ ধাতু মানে রক্ষা আছে, পালনও আছে। ইষ্ট-চিন্তা মানেই সৎ-চিন্তা, তুই তাই বলতে চাচ্ছিস? ইষ্টচিন্তা ও ইষ্টকর্ম যদি রক্ষা করে চলি। রক্ষা মানে পালনও আছে। তার মানে তাঁকে রেখে যদি চলি তবে ভয় থাকবে না, দুর্ব্বলতাও থাকবে না।

[‘যামিনীকান্ত রায়চৌধুরীর দিনলিপি/তাং-৪/৯/৭৮ ইং]

[প্রসঙ্গঃ সত্যানুসরণ পৃষ্ঠা ১৮৭]