যাকে দান ক’রবে…. হবে।

সত্যানুসরণ-এ থাকা শ্রীশ্রীঠাকুরের বাণীটি হলো:

যাকে দান ক’রবে, তার দুঃখ অনুভব ক’রে সহানুভূতি প্রকাশ কর, সাহস দাও, সান্ত্বনা দাও ; পরে যা’ সাধ্য, যত্ন-সহকারে দাও ; প্রেমের অধিকারী হবে—দান সিদ্ধ হবে।

পরমপূজ্যপাদ শ্রীশ্রীবড়দা কর্তৃক ব্যাখ্যা :

কানন—একটা ভিখারী পড়ে আছে, খেতে পায় না। আমি তাকে সহানুভূতি দেখিয়ে যা’ সাধ্য কিছু দিলাম।

শ্রীশ্রীবড়দা—এখানে প্রেমের অধিকারী হবে কি করে? প্রেম কি? দান করবি কাকে? যে দুঃখকষ্টে পড়ে তোর কাছে আসবে সেই যাচ্ঞাকারীকে—যা’ বললে সান্তনা পায় তা’কে তাই বললি। সহানুভূতি দেখালি—তার দুঃখকষ্ট অনুভব ক’রে তাকে বললি—তার যেমন ছেলের কষ্ট, তুইও তেমনি কষ্ট অনুভব করিস্‌। সান্ত্বনা দিলে মন ঠাণ্ডা হয়। আমি মনে করি সেও ঠাকুরের সন্তান, আমিও তাঁর সন্তান। তাকেও ইষ্টের সন্তান অনুভব করে যে ভাব—সেইটাই প্রেম। পরমপিতার সেই ঐশী ভাব মনে এলে প্রকৃত প্রেমের অধিকারী হওয়া যায়, আর তখন দানও সিদ্ধ হয়। . . . অসুখে, বিপদে-আপদে পড়শীদের নিষ্কাম সেবা করতে হয়। পরম শত্রু হলেও করতে হয়।

[‘যামিনীকান্ত রায় চৌধুরীর দিনলিপি/তাং-২১/৬/৭৭ ইং]

[প্রসঙ্গঃ সত্যানুসরণ পৃষ্ঠা ১৭০]