যে-কেহ প্রেমের জন্য জীবন দান করে, সে প্রেমের জীবন লাভ করে।

সত্যানুসরণ-এ থাকা শ্রীশ্রীঠাকুরের বাণীটি হলো:

যে-কেহ প্রেমের জন্য জীবন দান করে, সে প্রেমের জীবন লাভ করে।

পরমপূজ্যপাদ শ্রীশ্রীবড়দা কর্তৃক ব্যাখ্যা :

মেয়েদের আলোচনায় বেণু সাহা বাণীটি পুনরায় পাঠ করার পর কিছু না বলায় পরবর্তী পাঠিকা শোভা সান্যালকে আলোচনা করতে বললেন শ্রীশ্রীপিতৃদেব।

শোভা—ভক্তির গাঢ়ত্বই প্রেম। আমার যদি ইষ্টের প্রতি ভালবাসা থাকে, ভক্তি থাকে তাহলে সেই ভক্তি গাঢ় হয়ে প্রেমে পরিণত হয়। তখন ইষ্ট ছাড়া কাউকে—

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—প্রেমের জন্য কি করা হচ্ছে? প্রেমের জন্য জীবন দানই বা কি করে করছিস? সবের মধ্যে ইষ্ট ঢুকায়ে দিচ্ছিস। সে তো ভালই, কিন্তু বুঝায়ে দে। আলোচনা কর্‌।

শোভা কিছু না বলায় নিজেই বললেন—ইষ্ট মানে কি?—যিনি কল্যাণ বা মঙ্গলের মূর্ত্ত প্রতীক। আর সেখানে কি থাকে? —ভালবাসা, ভক্তি, প্রেম থাকে না? —অর্থাৎ তিনি প্রেমের মূর্ত্ত প্রতীক। তাঁর সেবার জন্য যদি আমি জীবন দান করি তাহলে প্রেম হবে। হবে না? ভালবাসা পাওয়া যায় কার কাছে? গুরুর কাছে।

ভবানীদা (রায়)—যিনি প্রেমস্বরূপ তাঁর কাছে।

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—প্রেমঘন। কল্যাণের মূর্ত্ত প্রতীকই তিনি। তাঁর সেবায় লেগে থাকলে আমার মধ্যেও প্রেম আসবে।

[ পিতৃদেবের চরণপ্রান্তে/তাং-৭/৮/৭৯ ইং]

[প্রসঙ্গঃ সত্যানুসরণ পৃষ্ঠা ১১৫ – ১১৬]