সৎ কথা …. ভাল। – ব্যাখ্যা

সত্যানুসরণ-এ থাকা শ্রীশ্রীঠাকুরের বাণীটি হলো:

সৎ কথা বলা ভাল, কিন্তু ভাবা, অনুভব করা আরোও ভাল।

পরমপূজ্যপাদ শ্রীশ্রীবড়দা কর্তৃক ব্যাখ্যা :

সুনীলদা (বিশ্বাস) জানালেন—আজ ছেলেদের আলোচনা ।

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—কেন, ছেলেদের কেন? আমি ভাবলাম মেয়েদের হবে। অশোক বিশ্বাস আলোচনা করুক।

অশোক বিশ্বাস আর একবার বাণীটি পড়ে বলল—সৎ কথা বলা ভাল, কিন্তু সে-গুলোকে ভাবতে—অনুভব করতে হয়।

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—সে তো ঠিকই। কিন্তু কেমন করে সৎ কথা বলবি, ভাববি, অনুভব করবি?

অশোক—ঠাকুরের বাণীগুলো বলা ভাল, কিন্তু সেগুলো ভাবতে হবে—কাজেও লাগাতে হবে।

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—একটা বাণী বল্‌।

অশোক—“মানুষ আপন টাকা পর/যত পারিস মানুষ ধর্‌।”

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—ঠাকুরের বাণীগুলো সৎ কেন? আলোচনা করতে হবে তো! ফাল্গুনী (রায়চৌধুরী) বল্‌।

ফাল্গুনী—সৎ মানে ইস্ট।

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—কেন? সৎ মানেই বা কি, ইষ্ট মানেই বা কি?

ফাল্গুনী নিশ্চুপ থাকাতে বললেন—সুভাশিষ বল্‌। দেরী হয়ে যাচ্ছে।

সুভাশিষ—জীবনবৃদ্ধির সহায়ক যিনি তিনিই সৎ—সেই জন্য তিনি ইষ্ট। তাঁর কথা বলা ভাল।

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—জীবনবৃদ্ধির সহায়ক যিনি, তিনিই সৎ। সে তো বুঝলাম। আমরা সারাদিন তো কত কথা বলি।

এবার কৃতিদ্যুতিকে (বিশ্বাস) বলার জন্য বললেন।

কৃতিদ্যুতি—তিনি যে কথাগুলো ভালবাসেন, সেগুলো বলতে হবে।

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—তাহলে তো চার্ট করে নিতে হবে। জীবনবৃদ্ধির সহায়ক যেসব কথা সেগুলো সৎ কথা—বলবি তো! সে সব কথা বলা ভাল। তারপরে?

—কিন্তু ভাবা, অনুভব করা আরও ভাল।

শ্রীশ্রীপিতৃদেব—ঠাকুরের বাণী আছে যে, “সৎ কথা বলা ভাল, কিন্তু ভাবা, অনুভব করা আরো ভাল। ”—এটা তো একটা সৎ কথা, এটা ভাবতে হবে, অনুভব করতে হবে। এইরকম করতে হবে, মিলায় দিচ্ছিস না তো?

[পিতৃদেবের চরণপ্রান্তে/তাং-২৫/৭/৭৯ ইং ]

[প্রসঙ্গঃ সত্যানুসরণ পৃষ্ঠা ১০৩]