অহংকারমুক্ত থাকার উপায় – সত্যানুসরণ

শ্রীশ্রীঠাকুর তাঁর শ্রীহস্তলিখিত সত্যানুসরণ গ্রন্থের পৃষ্ঠা নং ৬০ – ৬২ তে অহংকারমুক্ত থাকার উপায় নিয়ে বিস্তারিত বলেছেন। তিনি বলেন…

দেহ থাকতে অহঙ্কার যায় না, আর ভাব থাকতেও অহং যায় না। তবে নিজের অহং আদর্শের উপর দিয়ে, passive (অক্রিয়) হ’য়ে যে যত থাকতে পারে, সে তত নিরহঙ্কার এবং সে তত উদার।

নিজের গৰ্ব্ব যত না করা যায় ততই মঙ্গল, আর আদর্শের গৰ্ব্ব যত করা যায় ততই মঙ্গল।

পরমপিতাই তোমার অহঙ্কারের বিষয় হউন, আর তুমি তাঁতেই আনন্দ উপভোগ কর।

অসৎ আদর্শে তোমার অহঙ্কার ন্যস্ত ক’রো না ; তা’ হ’লে তোমার অহঙ্কার আরও কঠিন হবে।

[উপরের “অসৎ…হবে” বাণীটির ব্যাখ্যা]

আদর্শ যত উচ্চ বা উদার হয় ততই ভাল, কারণ, যত উচ্চতা বা উদারতার আশ্রয় নেবে, তুমিও তত উচ্চ ও উদার হবে।

[উপরের “আদর্শ…হবে” বাণীটির ব্যাখ্যা]

যখনই দেখবে, মানুষ তোমাকে প্রণাম ক’রছে আর তাতে তোমার বিশেষ কোন আপত্তি হ’চ্ছে না, মৌখিক এক-একবার আপত্তি ক’রছ বটে—মনে বিশেষ একটা কিছু হ’চ্ছে না—তখনই ঠিক জেনো, অন্তরে চোরের মত হামবড়াই ঢুকেছে ; তুমি যত শীঘ্র পার, সাবধান হও, নতুবা নিশ্চয়ই অধঃপাতে যাবে।

[উপরের “যখনই…যাবে” বাণীটির ব্যাখ্যা]

আর, যখনই কেহ প্রণাম ক’রলেই অমনি দীনতায় তোমার মাথা হেঁট হ’য়ে যাচ্ছে, সেবা নিতে মন মোটেই রাজী নয়কো, বরং সেবা ক’রতে মন সকল সময় ব্যস্ত র’য়েছে,—আদর্শের কথা ব’লতেই প্রাণে আনন্দ বোধ হ’চ্ছে—তোমার ভয় নেই, তুমি মঙ্গলের কোলেই র’য়েছ ; আর, নিয়ত আরও বেশী অমনি থাকতে চেষ্টা কর।

Leave a Comment